১৯শে জানুয়ারি, ২০১৮ ইং, ৬ই মাঘ, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, ২রা জমাদিউল-আউয়াল, ১৪৩৯ হিজরী

ভালোবাসা দিবসের নাটকে তাহসান-তিশা

জানুয়ারি ৯, ২০১৮, সময় ১১:১২ অপরাহ্ণ

নতুন বছর ভক্তদের সুখবর দিয়েই শুরু করলেন গায়ক ও অভিনেতা তাহসান খান। মুস্তাফা কামাল রাজের ‘যদি একদিন’ ছবির মাধ্যমে সিনেমায় অভিষেক হচ্ছে তার। অন্যদিকে কয়েক বছর বিরতির পর আবার শুরু হচ্ছে লাক্স সুপারস্টার প্রতিযোগিতা। এ প্রতিযোগিতায় প্রধান বিচারকের ভারও তার কাঁধে।

সবমিলিয়ে বেশ খোশমেজাজেই রয়েছেন এ তারকা। নতুন খবর হচ্ছে, অনেকদিন ধরে নাটক থেকে দূরে থাকলেও সম্প্রতি ভালোবাসা দিবস উপলক্ষে নির্মিত একটি নাটকে অভিনয় করলেন তাহসান। নাটকের নাম ‘একটি মধ্যবিত্ত ফ্রিজের গল্প’। নাটকটি নির্মাণ করেছেন সাগর জাহান। এতে তাহসানের বিপরীতে অভিনয় করেছেন নুসরাত ইমরোজ তিশা।

সমাজের মধ্যবিত্ত মানুষের গল্প নিয়ে আবর্তিত হয়েছে নাটকের গল্প। এতে অভিনয় প্রসঙ্গে তাহসান বলেন, ‘নাটক থেকে বেশকিছু দিন দূরে ছিলাম। আবার শুরু করলাম। বেশ টাচ্ িএকটি গল্প। মধ্যবিত্ত পরিবারে সবাই এমন পরিস্থিতির মধ্য দিয়ে সময় পার করেন। দেখলে মনে হবে এটি যেন আমাদের সবার গল্প। আশা করি, দর্শকদের ভালো লাগবে।’

তিশা বলেন, ‘এর আগেও তাহসান ভাইয়ের সঙ্গে অনেক নাটকে অভিনয় করেছি। ভালোবাসা দিবস উপলক্ষেও একটি নাটকে অভিনয় করলাম। সাগর জাহান ভাই একজন ভালো নির্মাতা। এ নাটকটিও তার ভালো কাজের একটি হবে।’

নাটকটি ভালোবাসা দিবস উপলক্ষে কোনো একটি চ্যানেলে প্রচার হবে বলে জানিয়েছেন নির্মাতা।

 

শেরপুরে স্ত্রী হত্যা মামলায় স্বামীর মৃত্যুদণ্ড

ঘুমন্ত স্ত্রীকে গলা কেটে হত্যার দায়ে স্বামীর মৃত্যুদণ্ড দিয়েছেন শেরপুরের একটি আদালত। একই সঙ্গে সাজাপ্রাপ্ত ব্যক্তিকে ১০ হাজার টাকা অর্থদণ্ড দেয়া হয়েছে।

মঙ্গলবার বিকালে এ রায় ঘোষণা করেন অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ মো. মোসলেহ উদ্দিন। দণ্ডপ্রাপ্ত সোহেল রানা এ সময় আদালতে উপস্থিত ছিলেন।

সোহেল রানা শ্রীবরদী উপজেলার মাধবপুর গ্রামের ছাবেদ আলীর ছেলে।

আদালতের অতিরিক্ত পিপি ইমাম হোসেন ঠান্ডু জানান, পারিবারিক কলহের জের ধরে ২০১১ সালের ২৯ আগস্ট ভোরে শ্বশুরবাড়িতে ঘুমন্ত স্ত্রী আফরোজা বেগমকে গারো দা দিয়ে গলা কেটে হত্যা করেন স্বামী সোহেল রানা। গুরুতর আহত অবস্থায় আফরোজাকে শ্রীবরদী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেয়ার পথে তার মৃত্যু ঘটে।

শ্বশুরবাড়ির লোকজন সোহেল রানাকে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করেন। এ ঘটনায় সোহেল রানা ও তার বাবা-মাসহ চারজনকে আসামি করে নিহতের বাবা আফরোজ আলী বাদী হয়ে শ্রীবরদী থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। পরে আদালতে সোহেল রানা স্ত্রী হত্যার বিষয়ে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেন।

Comments

comments

আজকের সব খবর

error: Content is protected !!