Wednesday , May 23 2018
Home / নির্বাচিত / সাগরতলের রহস্যময় জাদুঘর, কী থাকছে রহস্যে ঘেরা এই জাদুঘরে?

সাগরতলের রহস্যময় জাদুঘর, কী থাকছে রহস্যে ঘেরা এই জাদুঘরে?

সাগরের ১৫ মিটার গভীরে ৩০০ ভাস্কর্য স্থাপনের কাজ এগিয়ে চলছে। আর এগুলো তৈরি করেছেন জেসন দ্য-কেয়ারস নামে একজন শিল্পী। বিশ্বে এই জাদুঘরটিই সাগরতলে ইউরোপের প্রথম যাদুঘর হিসেবে খ্যাত।

মূল কথা হলো আটলান্টিক মহাসাগরের ক্যানারি দ্বীপপুঞ্জের অন্যতম লানযারোতের উপকূলের কাছে সাগরের তলদেশে জাদুঘর তৈরি করছে স্পেন।

মূর্তিগুলো লানযারোতের বাসিন্দাদের নিত্যদিনের কর্মকাণ্ডের ওপর নির্মাণ করা হয়েছে। বলা হচ্ছে, যেসব পদার্থ এই ভাস্কর্য তৈরিতে ব্যবহার করা হয়েছে, তাতে সাগরের পানির বা জীব বৈচিত্র্যের কোনো ক্ষতি হবে না। পানির নিচে এগুলো তিনশ বছর পর্যন্ত টিকবে।

অভিনব এই যাদুঘর দেখতে হলে পিঠে অক্সিজেনের টিউব নিয়ে ডুবুরির পোশাকে সাগরতলে নামতে হবে।

আফ্রিকার মূল ভূখণ্ডের খুব কাছে ক্যানারি দ্বীপপুঞ্জে সারা বছরই লাখ লাখ পর্যটক যান। তাদের জন্য সাগর তলের এই যাদুঘর নতুন আকর্ষণ হবে।

সৌভাগ্যের দরজা খুলতে বাড়িতে যে গাছ অবশ্যই রাখবেন

প্রথা অনুযায়ী চীনের ফেংশুই বদলে দিতে পারে জীবন। আর এই ফেংশুই-এর রীতি অনুযায়ী, বাড়িতে বাঁশগাছ রাখলে খুলে যেতে পারে ভাগ্য। এতে ঘরে আসে পজেটিভ এনার্জি। বাড়িতে সম্পদে ভরিয়ে দিতে পারে এই বাঁশ গাছ। ফেংশুইয়ের কাছে এটাই সবথেকে গুরুত্বপূর্ণ একটি জিনিস।

বর্তমানে প্রায় সব দেশে বিক্রি হয় এই বাঁশ গাছ। ঘর সাজানোর জন্য যা ব্যবহার করা হয়। তবে এই গাছগুলো নাকি শুধু রাখলেই চলবে না, নিতে হবে যত্ন। যেকোন নার্সারিতে সহজেই পাবেন এই ইমিটেশন বাঁশ গাছ।

ঘরের কোন ঘেষে ছোট্ট টবে লাগাতে পারেন এই গাছ। তাতে রাখতে হবে পানি আর পাথর। অনেকে এই গাছ অ্যাকুরিয়ামেও রাখেন। পানিতে এই গাছ সহজেই বেড়ে ওঠে। এতে বেঁধে রাখতে পারেন লাল ফিতে। যা আগুনের প্রতীক।

কোথায় রাখবেন- দক্ষিণ-পূর্ব দিক হল অর্থ ও সম্পদের দিক। তাই সেদিকে এই বাঁশ গাছ রাখাই ভালো।

Check Also

খুব সহজে তৈরি করে ফেলুন আকর্ষণীয় ও ট্যাঁসটি গাজরের লাড্ডু…!!!

গাজরের লাড্ডু দেখতে আকর্ষণীয় খেতেও তেমনি মজা। খুব সহজে তৈরি করে খেতে পারেন এই সুস্বাদু …