Friday , May 25 2018
সর্বশেষ খবর
Home / বিচিত্র / সাবধান! যে বদভ্যাসে আপনার মৃত্যুও হতে পারে…

সাবধান! যে বদভ্যাসে আপনার মৃত্যুও হতে পারে…

কাটাকে নিরীহ একটি অভ্যাস মনে করেন অনেকেই। কিন্তু আসলেই কি এই অভ্যাসটি নিরীহ? যুক্তরাজ্যের এক ব্যক্তি দাঁত দিয়ে নখ কাটার অভ্যাসের কারণে মরতে বসেছিলেন প্রায়।

যুক্তরাজ্যের সাউথপোর্ট শহরের বাসিন্দা, ২৮ বছর বয়সী লুক হ্যানোম্যান তার দাঁত দিয়ে নখ কাটার অভ্যাসের কারণে বিপদে পড়েন। তিনি দাঁত দিয়ে নখ কামড়াতে গিয়ে ভুলবশত কিছুটা ত্বক কেটে ফেলেন। তিনি ব্যাপারটাকে তেমন আমলে নেননি।

ছোট এই ঘটনার ফলাফল পেতে শুরু করেন লুক। তার ঠান্ডাজ্বরের মতো কিছু উপসর্গ দেখা দিতে থাকে। কিন্তু জ্বর এবং কাঁপুনি উপেক্ষা করেও তিনি নিয়মিত কর্মক্ষেত্রে যাতায়াত করেন, ভাবেন ছুটির দিন রবিবার ডাক্তার দেখাবেন। এ সময়ের মাঝে তার আহত আঙুলটি ফুলে যায় এবং টনটনে ব্যথা হতে থাকে।

শুক্রবার নাগাদ তিনি ঘুমাতে যান এবং ঘুম থেকে ওঠেন পরদিন দুপুর ২টার দিকে। এত লম্বা সময় তিনি কখনোই ঘুমান না। এবার ভয় পেয়ে যান লুক। তার মা ডাক্তারকে ফোন করেন এবং তিনি বলেন, ২৪ ঘণ্টার মাঝে হাসপাতালে না নিলে বাঁচবেন না লুক। হাসপাতালে চারদিন থাকার পর তাকে আশংকামুক্ত ঘোষণা করেন ডাক্তাররা। ভাগ্য ভালো হবার কারণেই বেঁচে গেছেন লুক, বলেন ডাক্তাররা।

আসলে কী হয়েছিল তার? ডাক্তাররা জানিয়েছেন, দাঁত দিয়ে নখ কাটার ফলে সেপসিস হয়েছিল তার। যে কোনো ছোটখাট ইনফেকশন থেকেই সেপসিস হতে পারে। এর জন্য ইনফেকশন নয় বরং ইনফেকশনের কারণে আমাদের শরীরের প্রতিক্রিয়াটিই ক্ষতিকর।

সাধারণত আমাদের শরীরে কোনো ইনফেকশন হলে তা এক জায়গায় সীমাবদ্ধ থাকে এবং সারা শরীরে তা ছড়িয়ে পড়া থেকে তাকে আটকায় আমাদের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা। কিন্তু ইনফেকশন বেশি তীব্র হলে তা শরীরের বিভিন্ন অঙ্গে ছড়িয়ে পড়তে পারে। ফলে সারা শরীরে প্রদাহ সৃষ্টি হয়, তাই হলো সেপসিস। সেপসিস এবং সেপটিক শকের কারণে প্রতি বছর সারা বিশ্বে অন্তত ৬০ লাখ মানুষ মারা যান। যে কোনো বয়সের মানুষ সেপসিসে আক্রান্ত হতে পারেন।

দেখে নিন সেপসিসের মূল উপসর্গগুলো-

বিভ্রান্তি বা কথা জড়িয়ে আসা
প্রবল কাঁপুনি বা পেশি ব্যথা
সারাদিনে একবারও মুত্রত্যাগ না হওয়া
শ্বাস নিতে কষ্ট হওয়া
ত্বক বিবর্ণ হয়ে যাওয়া
প্রচণ্ড দুর্বল লাগা

Check Also

ফাঁসি দেওয়ার আগে জল্লাদ অপরাধীর কানে কি বলে থাকে জানেন ?

ফাঁসি দেওয়ার আগে জল্লাদ- ভারতে সেরকম ভাবে খুব কম ফাঁসি দেওয়া হয়ে থাকে । অন্যান্য …