১৬ই ডিসেম্বর, ২০১৭ ইং, ২রা পৌষ, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, ২৮শে রবিউল-আউয়াল, ১৪৩৯ হিজরী

খালু ও খালাতো ভাই ধর্ষণ করতো কিশোরীকে!

অক্টোবর ২৮, ২০১৭, সময় ১২:২৭ পূর্বাহ্ণ

জয়পুরহাটের সদর উপজেলায় কিশোরীকে ধর্ষণের অভিযোগে আপন খালু ও খালাতো ভাইকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।
বৃহস্পতিবার রাতে সদর উপজেলার চকশ্যাম গ্রাম থেকে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়।

তারা হলেন ওই গ্রামের মৃত শামসুল ইসলামের ছেলে মাসুদ রানা (৪৫) ও তার ছেলে ওমর ফারুক সুমন (২৫)।
মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা রিয়াজুল ইসলাম আরটিভি অনলাইনকে জানান, তিন বছর আগে কিশোরীর বাবার সঙ্গে মায়ের বিবাহ বিচ্ছেদ হয়। পরে কিশোরী মা মল্লিকা বেগমের সঙ্গে খালুর বাড়িতে উঠে। সংসারের অভাবের তাড়নায় এক বছর আগে মা ও খালা জর্ডানে কাজ করতে যান। এই সুযোগকে কাজে লাগিয়ে খালু ও খালাতো ভাই কিশোরীকে বিভিন্ন সময় পর্যায়ক্রমে ধর্ষণ করতে থাকে। বাবা-ছেলের এই কর্মকাণ্ডে অতিষ্ঠ হয়ে শিউলি নামের এক মহিলার কাছে দর্জির প্রশিক্ষণ নিতে যায় কিশোরী।

সম্প্রতি কিশোরীর মা জর্ডান থেকে বাংলাদেশে এসে মেয়ের কোনো খোঁজ না পেয়ে শিউলির বিরুদ্ধে অপহরণ মামলা করে। পরে পুলিশ পাঁচবিবির জয়দেবপুর এলাকার কিশোরীর ভাই মনিরুলের বাসা থেকে তাকে উদ্ধার করে। উদ্ধারের পর কিশোরী জানায় তাকে কেউ অপহরণ করেনি। খালু ও খালাতো ভাইয়ের অত্যাচার সইতে না পেরেই সে ওখান থেকে চলে এসেছে।পরে এ ঘটনায় মেয়েটির বড় ভাই মনিরুল ইসলাম বাদী হয়ে বৃহস্পতিবার থানায় মামলা করে। পরে পুলিশ রাতেই ধর্ষক বাবা ও ছেলেকে গ্রেপ্তার করে।

নির্জন পাহাড়ে বেড়াতে নিয়ে স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণ

চট্টগ্রামের সাতকানিয়া উপজেলায় এক স্কুলছাত্রী (১৩) ধর্ষণের শিকার হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে।
গেলো শনিবার এই ঘটনা ঘটে। পরে এ ঘটনায় বুধবার রাতে ওই শিক্ষার্থীর মা বাদী হয়ে সাতকানিয়া থানায় মামলা করেছেন।

ধর্ষণের শিকার মেয়েটি স্থানীয় একটি বিদ্যালয়ের ষষ্ঠ শ্রেণির শিক্ষার্থী।
পুলিশ ও ওই ছাত্রীর পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, গেলো শনিবার সকালে শিক্ষকের কাছে পড়া শেষে ওই শিক্ষার্থী স্কুলে যাচ্ছিল। এ সময় প্রতিবেশী মো. হারুন উদ্দিন (১৮) বেড়াতে নিয়ে যাওয়ার কথা বলে সিএনজিচালিত অটোরিকশায় করে তাকে একটি পাহাড়ে নিয়ে যায়। পরে পাহাড়ের নির্জন একটি স্থানে নিয়ে ওই শিক্ষার্থীকে ধর্ষণ করেন হারুন।

সাতকানিয়া থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) রেখা প্রভা দে বলেন, ওই শিক্ষার্থীকে বেড়াতে নিয়ে গিয়ে বিয়ের প্রলোভন ও ভয় দেখিয়ে হারুন উদ্দিন ধর্ষণ করেছেন। বৃহস্পতিবার ওই ছাত্রীকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ওয়ান স্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে (ওসিসি) ভর্তি করা হয়েছে।
সাতকানিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. রফিকুল ইসলাম বলেন, ধর্ষণের শিকার শিক্ষার্থীর মা বাদী হয়ে গেলো বুধবার রাতে থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা করেছেন। আসামি হারুন উদ্দিনকে গ্রেপ্তারে পুলিশ চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে।

ধর্ষণচেষ্টার অভিযোগে যুবলীগ নেতা গ্রেপ্তার

পিরোজপুরের নাজিরপুর উপজেলায় এক গৃহবধূকে ধর্ষণচেষ্টার অভিযোগে বেদার আলী ফরাজী (৪৫) নামে যুবলীগের এক নেতাকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।
বেদার আলী ফরাজী (৪৫) নাজিরপুর উপজেলার একটি ইউনিয়নের ওয়ার্ড যুবলীগের সভাপতি।

পুলিশ জানায়, ওই গৃহবধূ বাড়িতে একাই থাকতেন। তার স্বামী একটি মাদ্রাসার শিক্ষক। তিনি দুই সন্তানকে নিয়ে সেখানে থাকেন। গেলো শুক্রবার মধ্য রাতে বেদার আলী ওই গৃহবধূর ঘরে ঢুকে তাকে ধর্ষণের চেষ্টা করেন। এ সময় গৃহবধূর চিৎকার শুনে আশপাশের লোকজন ছুটে এলে বেদার আলী পালিয়ে যান।
পরে ওই গৃহবধূর স্বামী পুলিশের কাছে লিখিত অভিযোগ করলে ঘটনাস্থলে গিয়ে তদন্ত করে এর সত্যতা পায় পুলিশ। এরপর গতকাল বুধবার ওই গৃহবধূ নাজিরপুর থানায় মামলা করেন। এর পরপরই পুলিশ তাকে গ্রেপ্তার করে।

নাজিরপুর থানার ওসি মো. হাবিবুর রহমান বলেন, বুধবার রাতেই বেদার আলীকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার আদালতের মাধ্যমে তাকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

Comments

comments