১৯শে জানুয়ারি, ২০১৮ ইং, ৬ই মাঘ, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, ২রা জমাদিউল-আউয়াল, ১৪৩৯ হিজরী

লন্ডনে যুক্তরাষ্ট্রের সবচেয়ে ব্যয়বহুল দূতাবাস

ডিসেম্বর ১৭, ২০১৭, সময় ৯:০৮ পূর্বাহ্ণ

লন্ডনের টেমস নদীর তীরে বিশ্বের সবচেয়ে ব্যয়বহুল দূতাবাসটি নির্মাণ করেছে যুক্তরাষ্ট্র। ভবনটি নির্মাণে ব্যয় হয়েছে ১০০ কোটি ডলার(প্রায় আট হাজার কোটি টাকা)। এটিই যুক্তরাষ্ট্রের সবচেয়ে ব্যয়বহুল ভবন।

খোলামেলা পরিবেশে নির্মিত হলেও যেকোনো হামলা থেকে নিজেকে রক্ষা করতে পারবে ভবনটি। এজন্য সবধরনের ব্যবস্থা রয়েছে এর ভেতরে। একটি পার্কের কেন্দ্রে নির্মাণ করা হয়েছে চারকোণা এই ভবন। অবাক করা ব্যাপার হলো এর কোনো সীমানাপ্রাচীর নেই।
ওয়াশিংটন পোস্ট জানিয়েছে, ভবনটির চারপাশে একটা পুকুর রয়েছে। পুকুরে রয়েছে কৃত্রিম জলপ্রপাত ও গভীর পরিখা। ছাদে বসানো হয়েছে সৌর প্যানেল, যা এর চাহিদা পূরণের জন্য যথেষ্ট বিদ্যুৎ উৎপাদন করবে।

দূতাবাস ভবনে রয়েছে তুষারশুভ্র কাঁচের তৈরি হাঁটার পথ, রয়েছে মার্কিন সংবিধানের বিভিন্ন উদ্ধৃতি। রয়েছে নতুন ধাঁচের ভাস্কর্য। রয়েছে একটি পানশালা, একটি ব্যায়ামাগার, একটি ডাকঘর এবং একটি অত্যাধুনিক মেরিন সেনাব্যারাক। সিআই’র একটি কার্যালয়ও রয়েছে এখানে।

২০১৮ সালে দূতাবাসটি উদ্বোধন করা হবে। লন্ডন সফরে গিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের এটি উদ্বোধন করার কথা রয়েছে।
ব্রিটেনে যুক্তরাষ্ট্রের নতুন মার্কিন রাষ্ট্রদূত রবার্ট জনসন বলেন, আমরা প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের আগমনের অপেক্ষায় আছি। তবে তার আগমনের দিন এখনো ঠিক হয়নি। তিনি খুবই ব্যস্ত একজন প্রেসিডেন্ট।

বিশ্বের প্রথম খাড়া রেল লাইন

ভয়াবহ সুন্দর! এটির জন্য সম্ভবত এই বিশেষণই মানায়। বলছি, সুইজারল্যান্ডের খাড়া রেল লাইনের কথা। যেটাকে বলা হচ্ছে বিশ্বের প্রথম খাড়া রেল লাইন৷
শুধু সৌন্দর্য নয়, এই রেল লাইনে চড়ে ভ্রমণ উপভোগ করলে আপনি হবেন দুঃসাহসী। কারণ একেবারে সরু দঁড়ির মতো এই রেল লাইন পাহাড়ের ফাঁক ও নদীর ওপর দিয়ে নিয়ে যাবে আপনাকে গন্তব্যস্থলে৷
এতো সব বর্ণনা শুনে যদি ট্রেনে চড়ার লোভ পেয়ে বসে আপনাকে, তাহলে জেনে রাখুন এর জন্য যেতে হবে সুইজারল্যান্ডে।
দেশটির স্টুসে অত্যাধুনিক প্রযুক্তিতে তৈরি হয়েছে এই রেল লাইন৷

এই ট্রেনের যাত্রী হলে একদিকে যেমন প্রকৃতির অপরূপ শোভার সৌন্দর্য উপভোগ করতে পারবেন আপনি৷ পাশাপাশি আপনি যদি অ্যাডভেঞ্চার প্রিয় মানুষ হয়ে থাকেন৷ আর মনে মনে যদি সুপ্ত ইচ্ছে থাকে আপনার৷ তাহলে এই ট্রেনে চাপলে কিন্তু আপনার সেই আশা পূরণ হবে অনেকটাই৷
সুইজ প্রেসিডেন্ট ডরিস লিউথার্ড জানিয়েছেন, প্রায় ১৩০০ মিটার লম্বা এই রেল লাইন তৈরি করতে খরচ হয়েছে প্রায় ৫২.৬ বিলিয়ন ডলার৷ স্কিউজ সংস্থা এই রেল লাইনটি এবং ট্রেনগুলো তৈরির দায়িত্বে রয়েছে৷ সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে এই রেল লাইনটি প্রায় ৪৩০০ ফুট উঁচুতে৷ পাঁচ বছর ধরে তৈরি করা হয়েছে এই বিশেষ রেল লাইনটি৷

দেশটির রেলওয়ের মুখপাত্র ইভান স্টেইনার বলেছেন, এই রেল লাইন সুইসবাসীর জন্য গর্বের বিষয়৷
আগামীকাল রোববার থেকেই এটি জনসাধারণের জন্য খুলে দেয়া হবে৷ ১৪ বছর আগে এমন একটি পরিকল্পনা নেয়া হয়েছিল৷ প্রতি সেকেন্ডে ১০ মিটার যাবে এই ট্রেন৷

Comments

comments

আজকের সব খবর

error: Content is protected !!