Monday , April 23 2018
Home / অপরাধ জগৎ / বান্দরবানে ৪ পুলিশ কনস্টেবলকে পিটিয়েছে ছাত্রলীগ

বান্দরবানে ৪ পুলিশ কনস্টেবলকে পিটিয়েছে ছাত্রলীগ

বান্দরবানে ছাত্রলীগের বিরুদ্ধে চারজন পুলিশ কনস্টেবলকে পেটানোর অভিযোগ পাওয়া গেছে। শুক্রবার রাত ৮টার দিকে বান্দরবান রাজার মাঠ এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। আহত পুলিশ সদস্যরা হলেন—হাসান আল মামুন (২০), নাজমুল হাবিব (২১), হাসান মো. শাহরিয়ার (২০) ও শাখাওয়াত হোসেন (২০)। ঘটনার সময় তারা সবাই দায়িত্বরত ছিলেন। তাদের বান্দরবান সদর হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।

আহত পুলিশ সদস্য শাখাওয়াত বলেন, ‘শুক্রবার রাত ৮টার দিকে বান্দরবান রাজার মাঠ এলাকায় আমরা দায়িত্ব পালন করছিলাম। সেখানে তিনজন বেপরোয়া মোটরসাইকেল আরোহীকে আমরা ধীরে চালাতে বলি। এর ১৫-২০ মিনিট পরই ৩০-৩৫ জন লাঠি নিয়ে এসে আমাদের ওপর চড়াও হয়।’
এই ঘটনায় জড়িত থাকার সন্দেহে আরিফুল হক ও সাইফুদ্দিন মুন্না নামের দুজন ছাত্রলীগ কর্মীকে গ্রেফতার করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন বান্দরবানের পুলিশ সুপার সুজিত কুমার রায়। হামলার ঘটনায় মামলা হয়েছে। অন্যদের ধরতে অভিযান চালানো হচ্ছে বলেও জানান তিনি।

এ ব্যাপারে বান্দরবান ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি মো. ইসমাইল বলেন, ‘আমরা শুনেছি হামলাকারীরা ছাত্রলীগের।’ ঘটনাটি অনাকাঙ্ক্ষিত উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘তারা পুলিশ সদস্য এটা তারা জানতো না।’
অপরদিকে পুলিশের ওপর হামলাকারীদের ছাড় দেওয়া হবে না বলে জানিয়েছেন বান্দরবান জেলা শাখা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মো. ইসলাম বেবি।

ভারতে তিন তালাক বিরোধী বিল অনুমোদন

ভারতের কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভা তিন তালাক বিরোধী একটি বিলের অনুমোদন দিয়েছে। আজ শুক্রবার ‘মুসলিম নারী বিবাহ অধিকার রক্ষা’ শীর্ষক বিল অনুমোদন দেয় কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভা। এ বিলটি তিন তালাক বিরোধী বিল হিসেবেই পরিচিত। খবর এনডিটিভির।
স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজনাথ সিংয়ের নেতৃত্বে এই বিলের খসড়া তৈরি করা হয়েছে।
তবে দেশটির মুসলিম কমিউনিটি বলছে, ধর্মীয় ব্যাপারে হস্তক্ষেপের কোনো অধিকার নেই রাষ্ট্রের।
এর আগে গতকাল পশ্চিমবঙ্গের মুসলিম পারসোনাল ল’ বোর্ডের সাবকমিটি অভিযোগ করে যে, কোনো ইসলামিক স্কলারের সঙ্গে আলোচনা না করেই এই আইনের খসড়া তৈরি করা হয়েছে।

চলতি বছরের আগস্টে এভাবে তালাক দেয়া অসাংবিধানিক ঘোষণা করে সুপ্রিম কোর্ট। কিন্তু এরপরও হোয়াটসঅ্যাপে ক্ষুদে বার্তার (এসএমএস) মাধ্যমে তালাক দেয়ার অভিযোগ সামনে আসে। এরপরই আইন করে এই প্রথা নিষিদ্ধ করার জন্য কেন্দ্রকে সুপারিশ করে শীর্ষ আদালত।
নতুন আইনে তিন তালাকের ক্ষেত্রে খোরপোষ দাবি করতে পারবেন মুসলিম নারীরা। কেন্দ্রীয় সরকার আশা করছে, পার্লামেন্টের শীতকালীন অধিবেশনেই বিলটি পাস হয়ে যাবে।
বিল পাস হয়ে গেলেই তিন তালাক আইনের চোখে শাস্তিযোগ্য অপরাধ হিসেবে বিবেচনা করা হবে। সেক্ষেত্রে দোষ প্রমাণ হলে অভিযুক্তের তিন বছরের কারাদণ্ডও হতে পারে।

এদিকে মুলায়েম সিং যাদবের সমাজবাদী পার্টি ও তৃণমূল কংগ্রেস সরকারের এ ধরনের সিদ্ধান্তের প্রতিবাদ জানিয়েছে। তারা বলছে, এ ধরনের সিদ্ধান্ত চাপিয়ে না দিয়ে বরং কমিউনিটির ভেতর থেকে সংস্কারে জোর দিতে হবে। অবশ্য কারণটা খুব সহজেই অনুমেয় কেননা এই দুই দলের ভোটব্যাংকের একটা বড় অংশ মুসলিম সম্প্রদায়ের মানুষ।

উল্লেখ্য, পাকিস্তান ও রক্ষণশীল সৌদি আরবসহ বিশ্বের বিভিন্ন মুসলিম দেশে ‘তিন তালাক’ নিষিদ্ধ করা হয়েছে।

Check Also

ভ্যালেন্টাইনস ডে সম্পর্কে অজানা কিছু তথ্য!

ভ্যালেন্টাইনস ডে বা বিশ্ব ভালোবাসা দিবসের আর মাত্র বাকী আছে একদিন। এই বিশেষ দিনে সবাই …