১৯শে জানুয়ারি, ২০১৮ ইং, ৬ই মাঘ, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, ২রা জমাদিউল-আউয়াল, ১৪৩৯ হিজরী

লাগেজের ভেতর থেকে মস্তকবিহীন লাশ উদ্ধার

ডিসেম্বর ২০, ২০১৭, সময় ১১:৫০ অপরাহ্ণ

রাজধানীতে লাগেজের ভেতর থেকে মস্তকবিহীন ও হাত-পা কাটা অজ্ঞাত এক যুবকের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। নিহতের বয়স অানুমানিক ৩৭-৩৮ বছর বলে জানিয়েছে পুলিশ।

১৫ ডিসেম্বর শুক্রবার সকাল নয়টার দিকে দক্ষিণ কল্যাণপুরের ব্যাস্টিচ চার্জের সামনের খোলা মহাসড়কের উপরে থাকা একটি লাগেজের ভেতর থেকে দেহটি উদ্ধার করা হয়।

পুলিশ জানিয়েছে, রাস্তার মধ্যে একটি বদ্ধ লাগেজ পড়ে থাকতে দেখে টোকাইরা থানায় খবর দেয়। পুলিশ গিয়ে সেটি খুললে তার ভেতর থেকে পলিথিনে মোড়ানো একটি হাত-পা ও মস্তকবিহীন একটি দেহ উদ্ধার করে। পরে দেহটি ময়নাদতন্তের জন্য ঢাকা সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেহ হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়।

দারুসসালাম থানার উপ পরিদর্শক (এসঅাই) এলিস মাহমুদ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে প্রিয়.কমকে জানান, তরতাজা মরদেহটি দেখেক মনে হয়েছে বৃহস্পতিবার রাতে হত্যার পর কেউ লাগেজে করে সেখানে ফেলে রেখে চলে গেছে।
এ ঘটনায় মামলা প্রক্রিয়াধীন বলেও জানান এসআই এলিস মাহমুদ।AX

ভারতীয় ক্রিকেট দলের অধিনায়ক বিরাট কোহলি। দেশের জয় ভিন্ন অন্য কোনো ভাবনাকে বিন্দুমাত্র প্রশ্রয় দেন না। ঘাম ঝরিয়ে দেশের জন্যই খেতাব জয় করে আনেন তিনি। পুরো ভারত তার কাজে প্রেরণা পান। অথচ সেই ভারতীয় অধিনায়ক কোহলির দেশপ্রেম নিয়েই প্রশ্ন উঠল! শুধু কোহলিই নন, তার স্ত্রী বলিউড অভিনেত্রী আনুশকা শর্মার বিরুদ্ধেও দেশদ্রোহিতার অভিযোগ এনেছেন, ভারতের মধ্যপ্রদেশ রাজ্যের বিজেপি বিধায়ক পান্নালাল শাক্য।

অনেক গোপনীয়তা আর নাটকীয়তার মধ্য দিয়েই গত ১১ ডিসেম্বর ইতালির তুসকানির এক হেরিটেজ রিসোর্টে সাত পাঁকে বাঁধা পড়েন কোহলি ও আনুশকা। বিয়ের এক সপ্তাহ পার হয়ে গেলেও এখনও তাদের নিয়ে ভক্তদের আগ্রহ কমেনি। ভারতীয় সংবাদমাধ্যমগুলো তাদের বিয়ে নিয়ে প্রায় প্রতিদিনই কোনও না কোনও নতুন তথ্য প্রকাশ করছে।

কিন্তু তার সব ছাপিয়ে গেল কোহলি-আনুশকার উপর দেশদ্রোহিতার এমন অভিযোগ।
কেন এরকম অভিযোগ বিজেপি নেতার? তার মতে, ইতালিতে বিয়ে করেই কোহলি প্রমাণ করে দিয়েছেন যে তিনি দেশভক্ত হতে পারেন না। পান্নালাল মনে করেন, রাম-কৃষ্ণের (হিন্দুধর্মালম্বী দের ভগবান) বিয়ে হয়েছে ভারতে, তাহলে কোহলি-আনুশকা কেন দেশের বাইরে বিয়ে করেছেন। যিনি এরকম কাজ করতে পারেন, তিনি আর যাই হোক দেশভক্ত হতে পারেন না। এমনটাই মনে করেন বিজেপির এই নেতা।

এ প্রসঙ্গে পান্নালালের ভাষ্য, ‘কোহলি ভারতে উপার্জন করেন কিন্তু খরচ করার জন্য দেশে কোন জায়গা পান না। রামচন্দ্র, শ্রীকৃষ্ণ, বিক্রমাদিত্য, যুধিষ্ঠির এই ভারতেই বিয়ে করেছেন। আমাদের মধ্যেও অনেকেই এখানে বিয়ে করেছেন এবং করবেন। তবে আমাদের মধ্যে কেউই বিদেশে গিয়ে বিয়ে করবেন না, যেমনটা তিনি (কোহলি) করেছেন। তিনি এখান থেকেই খ্যাতি, টাকা, সম্মান অর্জন করেছেন। আর সে সবই নিয়ে যাচ্ছেন বিদেশে। এতেই প্রমাণ হয় তার দেশপ্রেম নেই।’

কোহলি-আনুশকা অনুসরণ যোগ্য নয় উল্লেখ করে বিজেপির এই নেতা আরও বলেন, ‘আপনি যদি এক মিনিট চিন্তা করেন, তাহলেই বুঝবেন। ইতালির নৃত্য শিল্পীরা এখানে এসে লাখ লাখ টাকা উপার্জন করেন।

আর তিনি এখান থেকে নিয়ে ইতালিতে দিয়ে আসেন। এমন মানুষ কখনই আমাদের অনুসরণযোগ্য হতে পারেনা। আমাদের আদর্শ হবেন তিনিই, যিনি সৎ ভাবে উপার্জন করবেন এবং দেশের জন্য খরচ করবেন। এটাই দেশের জন্য বড় সেবা। কিন্তু না, আপনি এখান থেকে উপার্জন করে কোহলির মত সেখানে খরচ করবেন, তারপর আবার দেশে চলে আসবেন!’
ভারতের আরেক শক্তিশালী রাজনৈতিক দল কংগ্রেসের পক্ষ থেকে অবশ্য বিজেপি নেতার এমন মন্তব্যের কড়া প্রতিক্রিয়া দেয়া হযেছে। এক বিবৃতিতে কংগ্রেস জানিয়েছে, গুজরাট ভোটের হতাশার জেরেই তার এমন মন্তব্য। কংগ্রেসের ব্যাখ্যা, গুজরাট ভোট দেখিয়ে দিয়েছে যে, উন্নয়ন ইস্যুতে বিজেপি এঁটে উঠতে পারবে না। সামনে মধ্যপ্রদেশ ভোট।

সুতরাং যেনতেন প্রকারেণ দেশপ্রেমের জিগির জাগিয়ে তুলেই ফায়দা লোটার চেষ্টা চলছে। তাই কাঠগড়ায় তোলা হয়েছে কোহলি-আনুশকার দেশপ্রেমকে। এখন পর্যন্ত বিজেপি নেতার এমন মন্তব্যের কোন প্রতিক্রিয়া জানাননি কোহলি-আনুশকা।
কোহলির দেশপ্রেম নিয়ে আজ পর্যন্ত কেউ প্রশ্ন তুলতে পারেননি। দেশের জন্য তার লড়াই, জেদের প্রশংসাই শোনা গিয়েছে। ব্যাক্তিগত পছন্দ ও ভিড়ভাট্টা এড়াতেই দেশের বাইরে বিয়ের সিদ্ধান্ত নেন কোহলি। ভবারতীয় গণমাধ্যমের দাবি, তুসকানির যে রিসোর্টে কোহলি-আনুশকার বিয়ে হয়েছে সেখানে তাদের আগেও দেখা হয়েছিল। জায়গাটি আনুশকার খুব প্রিয়ও ছিল। স্ত্রীর পছন্দের মূল্য দিতেই সেখানে বিয়ের সিদ্ধান্ত নেন কোহলি। এর সঙ্গে যে দেশপ্রেমের প্রশ্ন জড়িয়ে থাকতে পারে, তা কেউ ভেবেও দেখেননি। বিজেপি নেতার এমন দাবিতে তাই অবাক ভারতবাসীও।

Comments

comments

আজকের সব খবর

error: Content is protected !!